দীর্ঘমেয়াদী কর্মপরিকল্পনা

দীর্ঘ-মেয়াদী (দশ বছর বা অধিক) কার্যক্রমসমূহঃ ২০১৮-২০২৮/
১। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের সীমানা বৃদ্ধি ও নদীর তীরকে কেন্দ্র করে প্রর্যটন শিল্প, শহর রক্ষা বাধ ও আধুনিক অভ্যান্তরিন নৌ যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলা।
২। নগর অঞ্চলে জলবায়ূ পরিবর্তন ও অভিযোজন মোকাবেলা রক্ষাবাঁধ, সমন্বিত রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনা ও বস্তি উন্নয়ন প্রকল্প।
৩। জলাশয় ভরাট বন্ধ করা এবং সেগুলোকে প্রাকৃতিক জলাধার বানানোর উপযোগিতা তৈরী করা।
৪। শহরের ব্যস্ততম সদর রোড থেকে বরিশাল জেলখানা স্থানান্তর করে জেলখানাটি ২৭নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত ডেফুলিয়া (পূর্ব প্রস্তাবিত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা)-তে স্থানান্তর করা ও বর্তমান জেলখানার জায়গায় নভো থিয়েটর সহ আধুনিক সাইন্স সিটি/বিনোদন পার্ক গড়ে তোলা।
৫। চাদমারী, কেডিসি, বদ্ধভুমি, ত্রিশ গোডাউন এলাকাকে পর্যটন এলাকা হিসেবে গড়ে তোলা
৬। পোর্টরোড ব্রীজ থেকে দপদপিয়া ব্রীজ পর্যন্ত কীর্তনখোলার নদীর পাড়ে আন্তর্জাতিক মানের শহর রক্ষা বাঁধ সহ আন্তর্জাতিক মানের বিনোদন কেন্দ্র গড়ে তোলা।
৭। গড়িয়ারপাড় থেকে কুদঘাটা হয়ে কালিজিরা পর্যন্ত শহর বাইপাস সড়ক নির্মাণ।
৮। কাশিপুর চৌমাথা থেকে আবেদআলী শাহ মাজার-বেলতলা-পোর্টরোড পর্যন্ত শহর বাইপাস সড়ক নির্মাণ।
৯। ভাটার খাল পুনরুদ্ধার/ পুনঃ খনন ও সৌন্দর্যমূলক করা
১০। বরিশাল নগরীতে আধুনিক ট্রাফিক সিগনাল, মোড়গুলোতে আইল্যান্ড ও যাত্রী ছাউনি তৈরী।
১১। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনাধীন মোহাম্মদপুর শিল্প এলাকায় জেল খালের উপর একটি গার্ডার ব্রীজসহ রাস্তা
১২। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের বর্ধিত এলাকায় সড়কবাতি স্থাপন ও সকল রাস্তায় পর্যায়ক্রমে এল.ই.ডি. সড়ক বাতি স্থাপন প্রকল্প।
১৩। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে নির্মান ও বর্জ ব্যবস্থাপনার কাজে আধুনিক যন্ত্রপাতি ও যান বহন ক্রয়
১৪। বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ভূমি অধিগ্রহণসহ তিন অঞ্চলে তিনটি নতুন কবরস্থান, একটি শ্মাশান ও একটি খৃীষ্টান সমাধি নির্মাণ।
১৫। বরিশাল শহরের মধ্যে অভ্যন্তরিন মেট্রো রেল চালু করা।
১৬। বরিশাল মহানগরীর ৩০ গোডাউন ও সাগরদী খাল সংলগ্ন এলাকা সহ বর্তমানে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি সৌধের জায়গার কিছু অংশ (ঊটঅ.০৩) আধুনিক মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ও মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ নির্মানের প্রকল্প গ্রহন।
১৭। আঃ রব সেরনিয়াবাত ব্রীজ পার করে দক্ষিণ পূর্ব চরে (সাবেক পৌরসভা তথা বর্তমান সিটি কর্পোরেশনের সত্ত্বভুক্ত জমি) ও কালিজিরা ব্রিজ পার করে বামপাশে র্কীতনখোলা নদী ও কালিজিরা নদীর মোহনার খোলা জমিতে নতুন ইকোপার্কের প্রকল্প গ্রহন।
১৮। মূল শহরের মধ্য থেকে বিদ্যমান ইন্ডাষ্ট্রিসমূহ সরিয়ে জাগুয়া-কালিজিরাতে ইন্ডাষ্ট্রিয়াল জোন (ঊটঅ.১৩) গড়ে তোলা।
১৯। বর্তমান নগর ভবনটিকে ২ নং জোনের জোনাল নগর ভবন করা হবে। কাউনিয়া হাউজিং এরিয়া সংলগ্ন জায়গা-তে ১ নং জোনের জোনাল নগর ভবন এবং মাস্টারপ্লানে ঘটঅ-০৪ এলাকায় ৩ নং জোনের জোনাল নগরভবন করার প্রকল্প গ্রহন।
২০। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের সীমানা উত্তর দিকে তালতলি ব্রীজ ও দোয়ারিকা ব্রীজ পর্যন্ত (রহমতপুর বিমানবন্দর সহ); পশ্চিম দিকে রায়পাশা কড়াপুর পর্যন্ত এবং পূর্বদিকে চরআইচা ও চরকাওয়া পর্যন্ত বিস্তৃত করার জন্য সুপারিশ মাস্টার প্লান আপগ্রেডেশন।
২১। বরিশাল মহানগরীর কীর্তন খোলা নদীর পারে ডিসি খেয়াঘাট সংলগ্ন জায়গায় বরিশাল মহানগরীর একমাত্র হোলসেল কাচা বাজার অবস্থিত যা অপ্রতুল। সেজন্য কাশিপুর/গড়িয়ারপাড় এলাকায় নতুন আরো একটি কাঁচা বাজারের প্রকল্প গ্রহন।
২২। ব্যতিক্রম কার্যাবলী ঃ কর্মজীবি মহিলা হোষ্টেল নির্মান, বৃদ্ধাশ্রম নির্মান প্রকল্প, পথশিশু ও হিজড়া আবাসন প্রকল্প।